হোমপেজ ফিচারস মারা গেলেন বিশ্বের প্রবীণতম ব্যক্তি ১১৬ বছরের ফ্রেডি ব্লম

মারা গেলেন বিশ্বের প্রবীণতম ব্যক্তি ১১৬ বছরের ফ্রেডি ব্লম

দক্ষিণ আফ্রিকার ফ্রেডি ব্লম, বিশ্বের বয়স্কতম এই ব্যক্তি প্রয়াত হলেন আনুমানিক ১১৬ বছর বয়সে (Image: Independent Online, IOL)

মারা গেলেন বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তি হিসেবে নথিভূক্ত ফ্রেডি ব্লম। দক্ষিণ আফ্রিকার নাগরিক ফ্রেডির বয়স হয়েছিল ১১৬ বছর।

ফ্রেডি ব্লমের পরিচয় সংক্রান্ত নথি অনুযায়ী তার জন্ম ১৯০৪ সালের মে মাসে দক্ষিণ আফ্রিকার ইস্টার্ণ কেইপ প্রদেশে। অবশ্য ‘গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস’ কর্তৃপক্ষ বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণ নাগরিক হিসেবে তাকে কখনো স্বীকৃতি দেয়নি।

১৯১৮ সালে ছড়িয়ে পড়া এক রোগের প্রাদুর্ভাবে প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছিল ফ্রেডির ব্লমের পরিবার। কিশোর ফ্রেডি কোনমতে প্রাণে বেঁচে যান। জীবদ্দশায় দুটো বিশ্বযুদ্ধ এবং নিজ দেশ দক্ষিণ আফ্রিকায় বর্ণবাদী শাসন ও তার বিরুদ্ধে হওয়া নেলসন ম্যান্ডেলাদের দীর্ঘ কয়েক দশকের আন্দোলন প্রত্যক্ষ করেছেন এই প্রবীণ।

দু’বছর আগে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ফ্রেডি ব্লম নিজের দীর্ঘায়ূর কোন গোপন রহস্য নেই বলে মন্তব্য করে বলেছিলেন, “স্রষ্টার কারণেই আমি বেঁচে আছি। যেকোন সময়েই আমি ঝরে পড়তে পারি, কিন্তু তিনিই আমায় ধরে রেখেছেন।“

ফ্রেডি ব্লম তার কর্মজীবনের বেশিরভাগ সময় শ্রমিক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। শুরুতে তিনি কাজ করতেন কৃষিখামারে, পরে যোগ দেন পরিকাঠামো নির্মাণ শিল্পে। ফ্রেডি যখন কাজ থেকে অবসর নেন তখন তার বয়স আশির কোঠায়।

একসময় মদ্যপানের অভ্যাস থাকলেও বহু বছর আগেই তা ছেড়ে দেন ফ্রেডি। তবে তিনি ধুমপান করে গেছেন জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত। জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের জেরে দক্ষিণ আফ্রিকা সরকার দেশজুড়ে লকডাউন কার্যকর করলে এবছর নিজের ১১৬ তম জন্মদিনটি সিগারেট না খেয়েই কাটাতে হয়েছে ফ্রেডি ব্লমকে!

ফ্রেডি ব্লমের পরিবার তার মৃত্যু সম্পর্কে জানিয়েছে, শনিবার কেপ টাউনে স্বাভাবিকভাবেই প্রয়াত হয়েছেন তিনি। ফ্রেডিকে একজন শক্তিশালী ও গর্বিত মানুষ হিসেবে বর্ণনা করে তার পরিবার জানায়, দু’সপ্তাহ আগেও নিজের হাতে কাঠ কেটেছিলেন তিনি। তবে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী ফ্রেডি শেষ কয়েকদিনে অনেকটাই শুকিয়ে গিয়েছিলেন। তবে ফ্রেডি ব্লম কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বলে মনে করছেনা তার পরিবার।