হোমপেজ প্রযুক্তি প্রযুক্তির ছোঁয়ায় উঠে এল রোমান সম্রাটদের ‘আসল চেহারা’

প্রযুক্তির ছোঁয়ায় উঠে এল রোমান সম্রাটদের ‘আসল চেহারা’

প্রাচীন রোমান সম্রাট পার্টিন্যাক্সের বিভিন্ন আবক্ষ মূর্তি (বামেরটির মত) ও দালিলিক বর্ণনা থেকে প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে পুনর্নিমিত তার প্রায় 'অবিকল প্রতিমূর্তি'। রোমান সামাজ্যের এরকম মোট ৫৪ জনের চেহারা সম্প্রতি আধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় সৃষ্টি করা হয়েছে (Image: Daniel Voshart)

আদি আমলের রাজা, বাদশাহ কিংবা সম্রাটেরা দেখতে কেমন ছিলেন তা আমরা হাতে গড়া তাদের ছবি কিংবা ভাস্কর্য দেখে জানতে পারি। ছবিতে নানা রঙের ব্যবহার থাকে বলে চিত্রকর্ম থেকে তাদের মুখাবয়ব সম্পর্কে যতটা ভাল ধারণা পাওয়া যায়, ভাস্কর্যে তা অনেকটাই অনুপস্থিত থাকে। ফলে অতীতের নামকরা যেসব ব্যক্তির কেবল ভাস্কর্য রয়েছে, তাদের চেহারা সম্পর্কে আমাদের ধারণাটাও সাধারণত অসম্পূর্ণ থেকে যায়।

এবার হয়ত মিটতে চলেছে সেই অপূর্ণতাও। কানাডার টরেন্টো নিবাসী এক গ্রাফিক ডিজাইনার প্রাচীন রোমান সাম্রাজ্যের মোট ৫৪ জন সম্রাটের আবক্ষমূর্তি থেকে প্রযুক্তির সাহায্যে তাদের চেহারার অবিকল ছবি বা পোর্ট্রেট তৈরি করেছেন।

ড্যানিয়েল ভোশার্ট তার এই অভিনব উদ্যোগে বহুল ব্যবহৃত ফটোশপ সফটওয়্যার ছাড়াও ব্যবহার করেছেন বিশেষ এক প্রযুক্তি। ‘মেশিন লার্নিং’ নামে পরিচিত এই অ্যালগরিদম ব্যবস্থাপনায় কোন নির্দিষ্ট বিষয়ের একাধিক নমুনার মিল-অমিল সূক্ষ্মভাবে পর্যবেক্ষণ করে তার আপেক্ষিক একটি মডেল প্রস্তুত করা হয়। ৫৪ জন সম্রাটের বেলাতেও একই কাজ করেন ড্যানিয়েল ভোশার্ট। এরপর সেগুলোকে ফটোশপের সাহায্যে আরও জীবন্ত রূপ দেন তিনি।

প্রযুক্তির সাহায্যে তৈরি করা রোমান সাম্রাজ্যের ৫৪ ব্যক্তিত্বের ‘অবিকল চেহারা’ (Image: Daniel Voshart)

ভোশার্ট জানিয়েছেন, ৫৪ জন রোমান সম্রাটের প্রায় ৮০০ ভাস্কর্য তাকে ব্যবহার করতে হয়েছে এই পুরো প্রক্রিয়ায়। সেগুলোর সাহায্যে সম্রাটদের মুখের গড়ন, চেহারার বিশেষ কোন বৈশিষ্ট্য, চুল ও ত্বকের রঙ প্রভৃতি ভাস্কর্যগুলোর চেয়েও আরো স্পষ্টভাবে পুনঃনির্মাণ করা হয়। সবশেষে অ্যাডোবে ফটোশপ সফটওয়্যার দিয়ে ছবিগুলোকে পূর্ণতা দেন ভোশার্ট। এই পর্যায়টিতে বিভিন্ন মূদ্রায় খোদিত সম্রাটদের ছবি ও বিভিন্ন ঐতিহাসিক দলিলে তুলে ধরা তাদের চেহারার বর্ণনারও সাহায্য নেন তিনি।

প্রাচীন আমলে রাজকীয় ব্যক্তিবর্গের ছবি বা ভাস্কর্য নির্মাণের সময় সচরাচর তাদের চেহারা অতিরঞ্জিতভাবে ফুটিয়ে তোলা হত। অর্থাৎ বাস্তবের চেয়েও সুদর্শন, উজ্জ্বল, নীরোগ হিসেবে তুলে ধরা হত তাদেরকে। সেই প্রেক্ষাপটে ড্যানিয়েল ভোশার্ট চেষ্টা করেছেন যতটা সম্ভব অবিকৃত অবস্থায় ৫৪ রোমান সম্রাটের ‘আসল চেহারা’ ফুটিয়ে তুলতে।

মজার তথ্য হল, ড্যানিয়েল ভোশার্ট কয়েক মাস আগে যখন বিশেষ এই প্রোজেক্টটিতে হাত দিয়েছিলেন, তখন এটি নিয়ে তার বড় ধরনের কোন পরিকল্পনাই ছিলনা। কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের জেরে অনেকের মত তাকেও সেসময় ঘরবন্দী থাকতে হয়েছিল কিছুদিন। তখন স্রেফ অলস সময় পার করার জন্য তিনি প্রাচীন চরিত্রদের অবয়ব পুনঃনির্মাণের কাজটি হাতে নিয়েছিলেন।

আরও মজার বিষয় হল, সেসময় রোমান সম্রাট বা রোমান সাম্রাজ্য সম্পর্কে ভোশার্টের খুব বেশি জানাশোনাও ছিলনা। কিন্তু পরবর্তীতে এসম্পর্কে যথাসম্ভব পড়াশোনার পর এক এক করে ৫৪ জন প্রাচীন রোমান সম্রাটকে তিনি নতুন করে তুলে ধরেন সকলের সামনে। অবশ্য ড্যানিয়েল ভোশার্ট এও মন্তব্য করেছেন যে, রোমান সম্রাটদের সম্পর্কে আগে থেকে না জানাটা তাকে একভাবে সাহায্যই করেছে। কারণ এতে করে কোন ধরনের পক্ষপাত ছাড়াই তিনি সম্রাটদের চেহারা পুনঃনির্মাণ করতে পেরেছেন।

উল্লেখ্য, এই ৫৪ সম্রাটের প্রত্যেকেই প্রাচীন রোমান সাম্রাজ্যের ‘প্রিন্সিপেট’ যুগে রাজত্ব করেছেন। এই যুগটি খ্রিষ্টপূর্ব ২৭ সন থেকে ২৮৫ খ্রীষ্টাব্দ পর্যন্ত ব্যাপ্ত ছিল।